শিরোনাম :
অনেক কল্পনা জল্পনার পর টি-টোয়েন্টিতে ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেললেন মিরাজ শেষ হল সেই টি-টেন লীগের চূড়ান্ত নিলাম আকাশ ছোয়া মূল্যে দল পেলেন বাংলাদেশের পাঁচ ক্রিকেটার অগ্নিঝরা তাণ্ডব দেখিয়ে নিজেদের প্রমান করার পরীক্ষার সিরিজে প্রত্যাশিত জয় টাইগারদের, দেখুন ম্যাচ বিস্তারিত বোলিং ঝড়ের তাণ্ডবে ১৫ ওভার শেষে দেখে নিন সর্বশেষ স্কোর এই দলের সঙ্গেই এমন অবস্থা টাইগারদের! ফের শেষ বলে ছক্কা সোহানের, দুর্দান্ত লড়াকু ভাবে খেলে আরব আমিরাতের সামনে পাহাড় সমান রানের লক্ষ্য দিল টাইগাররা অবাক কাণ্ডঃ এই কেমন আউট দিলেন আম্পায়ার উড়তে থাকা মিরাজকে, দেখুন সর্বশেষ স্কোর আজ নিজেকে অনেক সুখী মনে হচ্ছে: আসিফ আবারও শুরুতেই হার বাংলাদেশের, দেখেনিন ফলাফল এইমাত্র শেষ হল বাংলাদেশ-আরব আমিরাত ম্যাচের টস, জেনে নিন ফলাফল
বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৫:৫০ পূর্বাহ্ন

“ফাঁকা বাড়িতে ১১ লাখ টাকার বিদ্যুৎ বিল”

রিপু / ৪০ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রতিদিনের পোস্ট ||

পাবনার চাটমোহর পৌর সদরের একটি আবাসিক ভবনের মিটারে সেপ্টেম্বর মাসে ভূতুড়ে বিদ্যুৎ বিল আসার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই ভবনে কেউ বসবাস না করলেও বিদ্যুৎ বিল এসেছে ১১ লাখ ৩৩ হাজার ৫৮৭ টাকা। আর ব্যবহার হয়েছে ৯০ হাজার ১৫০ ইউনিট। বিল প্রস্তুতকারক আসমা খাতুন ও এজিএম (অর্থ)-এর স্বাক্ষর সম্বলিত বিলটি গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হাতে পায় মিটার গ্রহীতার পরিবার। তারা জানায়, গত ৬ মাসে তাদের পরিবারের কোনো সদস্য ওই বাড়িতে থাকেনি।

যদিও এ ধরনের ভূতুড়ে বিল পাবনা পল্লী বিদ্যুৎ (পবিস)-১ সমিতির অফিসে নতুন কোনো বিষয় নয়। নজরদারি না থাকায় এসব ঘটনা দেখেও পবিস-১ প্রশাসনের টনক নড়ে না। তারা জোর করে গ্রাহকের ঘাড়ে দোষ চাপা দেয়।
স্থানীয়দের অভিযোগ, পবিস-১ অফিসে অদক্ষ অপারেটর দ্বারা বিদ্যুৎ বিল তৈরি করা হয়। ফলে বিদ্যুৎ বিলের কপিতে মিটার গ্রহীতার নাম, তার পিতার নাম ও মোবাইল নম্বরে প্রায় ভুল থাকে।

পবিস-১ এর কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে মিটার রিডিং না করে অফিসে বসে বিদ্যুৎ বিল তৈরির অভিযোগ নতুন নয়। সংশ্লিষ্টরা জানান, এজিএম (অর্থ)-এর বিল ক্রসচেক করার সই থাকলেও তিনি কিছুই করেন না। এ ছাড়া মিটারে কম বিদ্যুৎ ব্যবহার দেখিয়ে বছর শেষে হাতিয়ে নেয় অতিরিক্ত টাকা। ফলে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির প্রায় ৩ লাখ গ্রাহক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন নানা সময়।

স্থানীয়রা জানান, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মিটার রিডার কাম ম্যাসেঞ্জার অধীর কুমার সরকারের জিরো পয়েন্ট বাড়ির ৪৭৬৬ নম্বর হিসাবের বিদ্যুৎ বিল দায়িত্বরত লোকের কাছে দিয়ে চলে যান। এ সময় পরিবারের লোকজন বিদ্যুৎ বিলের পরিমাণ দেখে আঁতকে উঠে। মিটার রিডার রেজাউলকে ডেকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি দেখছি বলে বিলের কপিটি নিয়ে নিতে চান। পরে রাতে আবারও নতুন করে প্রিন্ট দেওয়া হয় ওই বিল। সকালে এজিএম (অর্থ)’কে দিয়ে জোরপূর্বক আগের বিল নিয়ে নতুন বিল চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন মিটার রিডার।

এসব বিষয় নিয়ে ভুক্তোভোগীসহ এলাকাবাসী চরম অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। অদক্ষ লোকবল আর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানান সমিতির সদস্যরা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বিল প্রস্তুতকারী আসমা খাতুন বলেন, ‘মানুষই ভুল করে। কাজ করতে গেলে একটু ভুল হতেই পারে।’ নিউজটি প্রকাশ না করার অনুরোধ করেন তিনি।

এ বিষয়ে পবিস ১-এর জেনারেল ম্যানেজার মো. আকমল হোসেন বলেন, ‘বিলটি কেউ ক্রসচেক করলে এমনটি হতো না। যদি কারো দোষ থাকে তার বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ   রিপু /প্রতিদিনের পোস্ট


এ জাতীয় আরো সংবাদ

Warning: Undefined variable $themeswala in /home/khandakarit/pratidinerpost.com/wp-content/themes/newsdemoten/single.php on line 229

Warning: Trying to access array offset on value of type null in /home/khandakarit/pratidinerpost.com/wp-content/themes/newsdemoten/single.php on line 229