February 2, 2023, 7:10 pm

বিশেষ যে কারণে হাতে কালো আর্মব্যান্ড পরে মাঠে জস বাটলাররা!

প্রতিনিধির নাম 74 বার
আপডেট : রবিবার, নভেম্বর ১৩, ২০২২

রবিবার মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত হওয়া পাকিস্তানের বিরুদ্ধে টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়রা ডেভিড ইংলিশের স্মরণে কালো আর্মব্যান্ড পরে মাঠে নামেন। ইংলিশ ৭৬ বছর বয়সে শনিবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

ইংল্যান্ডে ক্রিকেটের জন্য একটি তহবিল গড়ে তোলার জন্য ইংলিশ সবচেয়ে বেশি পরিচিত ছিল। তার বুনবুরি ফেস্টিভ্যাল প্রতিযোগিতার মাধ্যমে তিনি এই কাজটি করতেন। তার প্রচেষ্টার ফলে উৎসবটি হাজারেরও

বেশি প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটার তৈরি করেছে। এর মধ্যে ১২৫জন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার রয়েছে এবং তাদের মধ্যে কয়েকজন বর্তমান ইংল্যান্ড দলে রয়েছেন যারা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ফাইনালে খেলে।

অধিনায়ক এবং উইকেটরক্ষক জস বাটলার ডেভিড ইষলিশের মৃত্যুর খবর জানতে পেরে তার প্রতি প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে টুইট করেছেন। “ডেভিড ইংলিশ মারা যাওয়ার খবর শুনে খুব খারাপ লাগছে।

জীবনের দুর্দান্ত চরিত্রগুলির মধ্যে একটি। তার দুর্দান্ত বানবুরি উৎসবের মাধ্যমে কিছু সেরা ইংরেজ ক্রিকেটারের সাথে সময় কাটানো এবং প্রযোজকদের সাথে সময় কাটানো খুব মজার। শান্তিতে থেকো।”

ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) এই কিংবদন্তি ক্রিকেটারের মৃত্যুতে একটি বিবৃতি টুইট করেছে। “ইসিবি ডেভিড ইংলিশকে হারানোর বিষয়ে জানতে পেরে দুঃখিত। তিনি খেলার জন্য এবং

দাতব্যের জন্য অনেক কিছু করেছিলেন এবং তিনি ইংল্যান্ডের অনেক তারকা ক্রিকেটারদের উত্থানে একটি ভূমিকা পালন করেছিলেন। এই সময়ে আমাদের সব সান্ত্বনা তার বন্ধু এবং পরিবারের সঙ্গে।

”২০১৯ ওডিআই বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড যদি ফাইনালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে জয়লাভ করে তাহলে তারা পুরুষদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম দল হবে যারা একই সাথে দুটি বিশ্বকাপ ট্রফি পরপর জিতে নেবে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে ২০১০ সালে প্রথমবার টি-২০ বিশ্বকাপের ট্রফি জেতার পর এটি তাদের দ্বিতীয়বার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতা হবে।


এ জাতীয় আরো সংবাদ

Warning: Undefined variable $themeswala in /home/khandakarit/pratidinerpost.com/wp-content/themes/newsdemoten/single.php on line 229

Warning: Trying to access array offset on value of type null in /home/khandakarit/pratidinerpost.com/wp-content/themes/newsdemoten/single.php on line 229