February 8, 2023, 2:00 pm

লাখ টাকা কেজির সবজি হপ শুটস

কৃষি ডেস্ক, প্রতিদিনের পোস্ট 34 বার
আপডেট : সোমবার, ডিসেম্বর ২৬, ২০২২
লাখ_টাকা_কেজির_সবজি_হপ_শুটস
লাখ টাকা কেজির সবজি হপ শুটস

কৃষি ডেস্ক, প্রতিদিনের পোস্ট || লাখ টাকা কেজির সবজি হপ শুটস।

হপ- হিউমুলাস লুপুলাস গাছের বিজ্ঞানসম্মত নাম। যদিও এই নামটির সঙ্গে খুব কম মানুষই পরিচিত। এটি একটি বহুবর্ষজীবী উদ্ভিদ। এটির বৈশিষ্ট্য জানার আগ পর্যন্ত উত্তর আমেরিকা এবং ইউরোপের অধিবাসীদের কাছে এটি আগাছা হিসেবে পরিচিত ছিল হপ। হপ শুটসের ফুলকে বলা হয় ‘হপ কোনস’। এই ফুল কাজে লাগে বিয়ার প্রস্তুত করতে। আর বাকি অংশ ব্যবহৃত হয় সবজি হিসেবে।

সারা বিশ্বের কাছে এই গাছটির অবশ্য আলাদা একটি পরিচয় রয়েছে। বিশ্বের সবচেয়ে দামি সবজিরর গাছ এটি। এর ১ কেজির দাম ১ লাখ টাকার কাছাকাছি! বাজারে চাহিদা না থাকায় বাংলাদেশ-ভারতে এই সবজির চাষ হয় না। মূলত ইউরোপ এবং আমেরিকায় এর বহুল উৎপাদন হয়ে থাকে। আর সবজিটির নাম হপ শুটস। সবজিটি দেখতে অনেকটা অ্যাসপারাগাসের মতো। খেতেও অনেকটা সে রকমই। অ্যাসপারাগাস যে ভাবে রান্না করে খেতে হয় এই সবজিটিও সে ভাবেই খেতে পারবেন। এ ছাড়া আরও অনেক ব্যবহার রয়েছে এর।
লাখ_টাকা_কেজির_সবজি_হপ_শুটস

হপ শুটস এর ব্যবহার: এই গাছের ফুল হপ নামে পরিচিত। এই ফুল দিয়ে বিয়ার তৈরি করা হয়। কোনও পানীয়তে সুগন্ধী দেওয়ার কাজেও লাগে এই ফুল। হপ ফুল দিয়ে তৈরি বিয়ার সহজে নষ্ট হয় না। মূলত পানীয় তৈরিতেই প্রথম এই গাছের ব্যবহার সারা বিশ্বে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। তারপর ধীরে ধীরে এর ঔষধি গুণ সামনে আসতে শুরু করে।

ওই সবজিটি প্রথম চাষ হয় ৭৩৬ সালে জার্মানিতে। তবে প্রথম হপ শুটস পানীয়তে ব্যবহার করা হয় ১০৭৯ সালে। পরবর্তী কালে হল শুটস-এর আরও অনেক ঔষধি গুণের কথা সামনে আসে। এর বিশেষ অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল গুণ রয়েছে। টিবি রোগীদের ওষুধ তৈরিতে, ক্যানসারের চিকিৎসায় কাজে লাগে হপ শুটস। এই সমস্ত কারণেই হপ শুটস-এর এমন আকাশছোঁয়া দাম।

হপ শুটস-এর মধ্যে থাকা অ্যাসিড ক্যানসার আক্রান্ত কোষগুলিকে নষ্ট করে দেয়। ক্যানসারের ওষুধ তৈরিতে চিকিৎসা বিজ্ঞানে এই হপ শুটস নিয়ে বহু গবেষণাও চলছে। এই গাছটি মূলত ঝোপ প্রকৃতির। ফুলগুলি সবুজ রঙের আর খুব নরম। তাই খুব সাবধানে গাছ থেকে তুলতে হয় সেগুলি। তোলার সময় ক্ষতিগ্রস্ত হলে তা আর বিক্রির যোগ্য থাকে না।

হপ শুটস এর চাষাবাদ: হপস চাষাবাদের জন্য আদর্শ মাটি হলো এমন মাটি যার মধ্য দিয়ে হপের শিকড় অনেক দুর পর্যন্ত যেতে পারে। তবে মাটি শুকনা হওয়া জরুরী। হপ শুটস এর শিকড় ৪ থেকে ৫ মিটার পর্যন্ত মাটির গভীরে যায়। বসন্ত ও গ্রীষ্মে গাছের বৃদ্ধির জন্য পানি সেচ দিতে হবে।

হপস শুটস এর বীজ মার্চের আগেই লাগাতে হয়। মার্চের শেষে বীজ অংকুরিত হয়ে গাছ ঝোপালো আকার ধারন করলে তখন ডালপালা ছাঁটাই করে দিতে হবে। তবে বীজ লাগানোর আগে জমি ভালোভাবে তৈরি করে নিতে হবে। হপ শুটস উৎপাদনের জন্য শীত প্রয়োজন হয়। হপ শুটস এর মুকুলগুলি ২৪ থেকে ২৫ ডিগ্রী বেশী তাপমাত্রায় বাঁচতে পারেনা।

তবে বাংলাদেশে শীতকালে সঠিক পরিবেশ তৈরি করে এই সবজি চাষ করা সম্ভব। এই সবজি রপ্তানী করে প্রচুর পরিমানে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব।


এ জাতীয় আরো সংবাদ

Warning: Undefined variable $themeswala in /home/khandakarit/pratidinerpost.com/wp-content/themes/newsdemoten/single.php on line 229

Warning: Trying to access array offset on value of type null in /home/khandakarit/pratidinerpost.com/wp-content/themes/newsdemoten/single.php on line 229