বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ১১:৩৬ অপরাহ্ন

সৌদিতে দু’র্ঘটনায় প্রাণ গেল রাকিবুলের

সৌদি প্রতিনিধি / ৪৬ বার
আপডেট : সোমবার, ১৩ জুন, ২০২২

সৌদি প্রতিনিধি || সৌদিতে দু’র্ঘটনায় প্রাণ গেল রাকিবুলের।

সৌদি আরবে সড়ক দু’র্ঘটনায় তরুণ রাকিবুল ইসলাম (২২) প্রাণ হারিয়েছেন। গতকাল রোববার (১২ জুন) কিন্তু স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে সড়ক পরিচ্ছন্নতার কাজ করার সময় দু’র্ঘটনায় প্রাণ হারান তিনি। দেশে থাকতে বিয়ে করেছিলেন রাকিবুল । বিয়ের দেড় বছরের মাথায় রাকিবুলের ঘর আলো করে জন্ম নেয় এক ছেলেসন্তান। আর সেই ছেলে ও পরিবারের নিরাপদ ভবিষ্যতের জন্য ১৪ দিন আগে সৌদি আরবে পাড়ি জমিয়েছিলেন তিনি। তাঁর মৃ’ত্যুর খবরে ভেঙে পড়েছেন স্বজনেরা।

নি’হত যুবক রাকিবুল ইসলাম ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়নের গাঙিনা পাড়া গ্রামের বাসিন্দা মো. চান মিয়ার ছেলে। এলাকাবাসী জানিয়েছে , চান মিয়া স্থানীয় সিডস্টোর বাজারে একটি চায়ের দোকান চালান। ছেলেকে সৌদি আরবে পাঠাতে গিয়ে বিভিন্ন জায়গা থেকে তিন লাখ টাকা ধারদেনা করতে হয়েছে তাঁর।

আশা ছিল ছেলের আয়ের টাকা দিয়ে পরিবারের সচ্ছলতা ফেরার পাশাপাশি সব ধারদেনা পরিশোধ করে দেবেন। কিন্তু তাঁর সেই আশা ভেস্তে গেছে। উপরন্তু কর্মক্ষম ছেলেকে হারিয়ে এবং দেনার কথা ভেবে চান মিয়া এখন পাগলপ্রায়।

নি’হত রাকিবুলের বাবা চান মিয়া বলেন, ‘১ জুন পরিচ্ছন্নতাকর্মীর কাজ নিয়ে সৌদি আরবের রিয়াদে পৌঁছায় রাকিবুল। সেখান থেকে তাকে তায়েফ নগরীতে পাঠানো হয়। তায়েফে পৌঁছানোর পর সে ফোন করে কাজে যোগদানের কথা জানায়। গত শনিবার (১১ জুন) বিকেলে বাড়িতে ফোন দিয়ে পরিবারের সবার খোঁজখবর নেয় সে।’ তিনি বলেন, গতকাল ছেলের মৃ’ত্যুর সংবাদ পান তিনি। খবরটি তাঁর কাছে ব’জ্রা’ঘাতের মতো মনে হয়েছে। এটা দু’র্ঘটনা না অন্য কিছু বুঝতে পারছেন না তিনি।

ভাইয়ের মৃ’ত্যুর বিষয়ে সাকিবুল ইসলাম বলেন, সৌদিপ্রবাসী চাচাতো ভাই আবদুল্লাহ আল মামুন ফোন দিয়ে রাকিবুলের মৃ’ত্যু সংবাদটি নিশ্চিত করেন। তিনি কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমরা কেউ এই খবরের জন্য প্রস্তুত ছিলাম না। পরিবারের ভাগ্য ফেরাতে ভাই সৌদি আরবে গিয়েছিলেন।

এখন ভাইয়ের লা’শ ফিরে পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছি। সেখানে কী হয়েছিল, তা-ও জানতে পারছি না।’ সৌদিপ্রবাসী চাচাতো ভাই আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, যানবাহনের চা’পায় রাকিবুল নি’হত হওয়ার পর নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ দেশে তাঁর (রাকিবুল) বাবাকে ফোন দিয়ে বিষয়টি জানায়। পরে বাড়ির লোকজন সৌদিতে ফোন দিয়ে খবরটি সম্পর্কে নিশ্চিত হন।

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনী এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ। আশিকুল/প্রতিদিনের পোষ্ঠ


এ জাতীয় আরো সংবাদ